Breaking News

করোনা মোকাবিলায় সমগ্র বারাসাত জুড়ে আরও কড়া হল পুলিশ প্রশাসন

সৌভিক সরকার,  নিউজ অনলাইন: উত্তর চব্বিশ পরগনা কোভিড 19-য়ের সংক্রমণের  রেড জোনে। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ ছিল। সশস্ত্র পুলিশ কে  ভিড় নিয়ন্ত্রণ করতে আরো বেশি করে তৎপর হতে বলা  হয়েছে ।  লক ডাউনের মধ্যে আরেকটি রবিবার কে লক ডাউনের অন্যদিন গুলির মত যেন রাখতে এবং ভিড় এড়াতে পুলিশি তৎপরতা তাই জারী সাতসকাল থেকেই। উত্তর চব্বিশ পরগনার বারাসাতে পুলিশি নজরদারি ছিল নজিরবিহীন। প্রতিটি জায়গায় পুলিশ যারা অনেকক্ষেত্রেই সশস্ত্র- তাঁরা রবিবারের সকালে বাজার গুলিতে  মানুষকে বিধি নিষেধের গন্ডি উলঙ্ঘন করতে দেয় নি। 

 অনেক ক্ষেত্রেই অভিযোগ ছিল বাজার করার নেশায়  মানুষ লক ডাউন মানছে না। এও  অভিযোগ উঠছিল স্বাস্থ্যবিধি মানতে  মানুষের হুঁশ ফিরছে না।সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা হচ্ছে না। মাস্ক পরতেও ছিল উদাসীনতা।পুলিশ এসব কাটাতে আরো বেশি সক্রিয়।  ফরমান  না মানলে জারী আছে ধরপাকড়।  এরই মধ্যে  উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলা সদর বারাসাতের বিভিন্ন বাজার গুলি কার্যত চিরুনিতল্লাশির ভঙ্গিতে  ঘুরে নজরদারি চালাল পুলিশ। বারাসাত জেলা পুলিশের সুপার অভিজিৎ বন্দোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে বারাসাতের বিভিন্ন বাজার গুলিতে  হানা দেয় পুলিশ। একশো ভাগ স্বাস্থ্য বিধি পালন করতে হবে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মাস্ক পরে বাজারে যেতে হবে। আর এই নির্দেশ কোথাও যেন না ভাঙা হয় সেজন্য সকাল থেকেই জেলা সদর বারাসাতের প্রতিটি বাজার ছিল পুলিশের আতশ কাঁচের তলায়।ভিড় করতে দেওয়া হয় নি, করোনা প্রতিরোধে সকলের মুখেই রাখতে হয়েছে মাস্ক।  সকালের দীর্ঘ অভিযান শেষে পুলিশ সুপার  অভিজিৎ বন্দোপাধ্যায় অবশ্য জানিয়ে গেলেন  কোনো বাজারে তাঁরা স্বাস্থ্য বিধি বিন্দুমাত্র ভাঙতে দিচ্ছেন না।

No comments