Breaking News

আপনি কি চেনেন এই বটুকেশ্বর দত্তকে?

কল্যাণ দত্ত, নিউজ অনলাইন: বর্ধমানের খণ্ডঘোষ ব্লকের ওয়ারি  গ্রামে ১৮ নভেম্বর ১৯১০ সালে জন্ম বিপ্লবী বটুকেশ্বর দত্তের। দেশের স্বাধীনতার জন্য বহু কিছু করেছেন তিনি। কানপুরে কলেজে পড়ার সময় গণেশ শঙ্কর বিদ্যার্থীর জাতীয়তাবাদী পত্রিকা 'প্রতাপ' এর সাথে যুক্ত হন ভগৎ সিং ও বটুকেশ্বর দত্ত। আর তখন থেকেই ধীরে ধীরে সহযোদ্ধা হয়ে ওঠেন তারা। গ্রাজুয়েশনের পরে পুরোপুরি বুঁদ হয়ে যান সশস্ত্র বিপ্লবে। বিপ্লবী সদস্যদের কাছে বটুকেশ্বর দত্ত বি কে নামে পরিচিত ছিলেন। তৎকালীন ইম্পিরিয়াল লেজিসলেটিভ কাউন্সিলের হলে হঠাৎ জোড়া বিস্ফোরণ। আর সেই বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে গোটা হল। হলের মধ্যে থাকা সকলের প্রাণ বাঁচানোর জন্য দৌড়ঝাঁপ শুরু করে। হঠাৎ দর্শক আসন থেকে উঠে আসে দুই অকুতোভয় যুবক।  উঠে আসা দুই যুবক ধ্বনি দিতে শুরু করেন" ইনক্লাব জিন্দাবাদ নিপাত যাক সাম্রাজ্যবাদ "। দুই যুবকের মধ্যে একজনকে সকলেই চিনি তিনি হলেন, ভগৎ সিং কিন্তু আরেকজন? তিনি হারিয়ে গেছেন ইতিহাসের পাতায়। অথচ তিনি একজন বঙ্গসন্তান তিনি বর্ধমানের সন্তান। ব্রিটিশ সরকারের কাছে আতঙ্কের কারণ ছিল বাঙালি। ভয়ে  তাকে জেলে রাখতে পারেনি। সাজা হয় কালাপানি জেলের, বটুকেশ্বর দত্ত কে স্থানান্তরিত করা হয় আন্দামানের সেলুলার জেলে। দেশের জন্য লড়াই করা বিপ্লবী বটুকেশ্বর দত্ত দেশ স্বাধীন হওয়ার পরেও সেভাবে সম্মান পাননি।  ১৯৬৫ সালের ২০ জুলাই লোকচক্ষুর আড়ালে মৃত্যু হয় বটুকেশ্বর দত্তের।

No comments