Breaking News

মমতা ব্যানার্জি রাজবংশীদের উপর প্রতিশোধ নিচ্ছে তাই তদন্ত নিয়ে নাটক করছে: রাজু ব্যানার্জি

বিশ্বজিৎ সরকার, নিউজ অনলাইন: 
চোপড়া থেকে ফেরার পথে রবিবার রাতে শিলিগুড়ি মহকুমার বিধাননগরে বিজেপির মন্ডল কমিটি সদস্যদের সঙ্গে দেখা করলেন বিজেপির রাজ্য সহ সভাপতি রাজু ব্যানার্জি। এরপর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তৃণমূল কংগ্রেসকে একহাত নিলেন রাজু ব্যানার্জি। তিনি বলেন যে চোপড়া ঘটনা দুঃখজনক ঘটনা। একটা বাচ্চা মেয়ে সবে ক্লাস টেন পাশ করলো। তার রাজ বংশী পরিবারের মেয়ে। তাকে নৃশংসভাবে ধর্ষণ করে খুন করা হল। আর তার পরেও প্রশাসন দোষীকে গ্রেফতার করতে পারলনা। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির একটা স্টেটমেন নেই। তারপর প্রশাসন উল্টে ধর্ষণটা ধামা চাপা দেওয়ার চেষ্টা করছে। এইটাকে দেখানো হচ্ছে আত্মহত্যা। অর্থাৎ এর আগে দেখেছেন যে আমাদের রাজ বংশী বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ রায়। তাকে আগেই বলে দেওয়া হয়েছিল যে আত্মহত্যা হয়েছে। আর পুরো নাটক সাজানো হয়েছিল। ঠিক একই ভাবে একটার পর একটা রাজ বংশীদের খুন করা হচ্ছে। আর আজকে যে একটা বাচ্চা রাজ বংশী ছাত্রীকে খুন করা হল। আমরা মনে করি যে রাজ বংশীরা বিজেপিকে দু হাত ভরে ভোট দিয়েছে আশীর্বাদ করেছে। কার তাই মমতা ব্যানার্জি সেই রাজ বংশীদের উপর প্রতিশোধ নিচ্ছে। তার জন্যই তিনি তদন্ত নিয়ে নাটক করছে এবং ধামা চাপা দেওয়া চেষ্টা করছে। আর পুলিশ পুলিশ হয়ে গেছে। পুলিশতো এখন তৃণমূল গুন্ডাদের ভয়ে টেবিলের তলায় চলে গেছে। আর আমরা বারবার বলে আসছি পুলিশের এসপিরা এখন তৃণমূলের সভাপতি হয়েগেছে। আর আইসিরা ব্লক সভাপতি হয়েগেছে। তার জন্য তৃণমূলের মতো আচরণ করছে। তৃণমূলের সঙ্গেতো আর ভাল মানুষ নেই। এক শ্রেণীর গুন্ডা ও এক শ্রেণীর পুলিশ তারাই এখন প্রশাসন চালাচ্ছে। তার জন্য আমরা বারবার দাবি করছি আসামিকে গ্রেফতার করতে হবে তার ফাঁসির সাজা চাইছি। তার সাথে সাথে সিবিআই তদন্ত চাইছি। বাংলার মানুষের পুলিশের উপর ভরসা নেই। তাই তারা আজকে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। সেই জন্য আমরা বাংলার মানুষকে চোপড়ার মানুষকে নমস্কার জানাচ্ছি। তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিনিধি দল যাওয়ার প্রসঙ্গে তিনি বলেন যে তৃণমূল কংগ্রেস প্রতিনিধি দল যাবে কারণ তারা গিয়ে টাকা দিয়ে কেনার চেষ্টা করবে। ভয় দেখানোর চেষ্টা করবে। তাকে চাকরির নাম করে ঘোরাবে। তার তৃণমূল কংগ্রেসের মিথ্যে ঢাকার জন্য তারা সেখানে হাজির হয়ে যাবে। গ্রামবাসীরা তাদের ঢুকতে দেবে কিনা সেইটা সন্দেহ আছে। জাবেন তো বলেছেন কিন্তু কিছু হলে আমাদের যেন না দায়িত্ব দেন। নিজের ভরসায় যাচ্ছেন নিজের ভরসায় ফিরে আসবেন। আমাদের কিন্তু বলবেন না। আর পর্যটনমন্ত্রী অনেকদিন ধরে ঘুরতে পারছেন নাতো ঘরের বাইরে যেতে পারছেন না। তার জন্য উনার মনে হয়েছে যে একটু ঘুরতে যাবার জায়গা পেয়েছি তাই একটু ঘুরে আসি। বাংলার মানুষ গ্রামের মানুষ আদেও তাকে ভ্রমন করতে দিবে কিনা। সেই গ্রামের মানুষই বুঝতে পারছেন। তার তিনি বুঝবেন। এর পাশাপাশি তিনি আরও বলেন বিচিত্র কি আছে যে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বলেন একটা ধর্ষণ হয়ে গেলে বলে পার্কস্টিট দেখেছে। ছোট ঘটনা সাজানো ঘটনা। আপনারা বাগনান দেখেছেন অরুপ রায় বলছেন যে দুসচরিত্রা। তাই এই জায়গার কে কানাইয়া আছে না কে আছে এতো ভালভাল নাম তৃণমূলের গুনডাদের কে দেও ভগবান জানে। তাই তাদের মুখ থেকেই এই কথাগুলো শোভা পায়। উত্তরবঙ্গের মানুষ তৃণমূলকে হাফ করে দিয়েছে। আর ২০২১ এ সাফ করে দিবে। এবং এই রকম যারা কথা বলে বেরাচ্ছে একটা বাচ্চা রাজ বংশী মেয়েকে নৃশংসভাবে ধর্ষণ করে খুন করে দেওয়া হল। আর তাকে এই রকম অপবাদ দেওয়া হচ্ছে। উত্তরবঙ্গের জনতা তাকে ছেড়ে দিবে চোপড়ার জনতা ছেড়ে দিবে ইসলামপুরের মানুষ ছেড়ে দিবে কেউ ছাড়বে না আগামীদিনে বিজেপিও ছাড়বে না। আর আমি বার বার বলছি এইসব ঘটনার তদন্ত করবো। এবং যত বড় নেতা মন্ত্রী আইপিএস আছে তারা কেউ ছাড় পাবে না। তাদের জেলের ভাত খাওয়াবো। এরপর তিনি সোজা সড়ক পথ দিয়ে চলে যান শিলিগুড়ির উদ্দেশ্যে।

No comments