Breaking News

শ্রমিকদের জন্য ৫০ লক্ষ টাকার বীমা করে দিল হলদিয়া বন্দর কর্তৃপক্ষ

প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়, নিউজ অনলাইন: 
করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে আতঙ্কিত সারাদেশ ।সেখানে দাঁড়িয়ে হলদিয়া বন্দর কর্তৃপক্ষ অত্যাবশ্যকীয় পণ্য সরবরাহ করার জন্য লকডানের মধ্যেও বন্দরে কাজ স্বাভাবিক অব্যাহত রেখেছেন। ইতিমধ্যে বন্দরের কয়েকজন মেরিন বিভাগে পাইলটসহ কর্মচারী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। কয়েকজন মারাও গেছেন। হলদিয়া বন্দর এর প্রধান কার্যালয় টাউনশিপ জহর টাওয়ারে অনেকেই করণায় আক্রান্ত হওয়াতে বন্দরে কাজকর্ম অনলাইনের মাধ্যমে নজরদারি চলছে। হলদিয়া টাউনশিপ বন্দর আবাসনে করোণা পজিটিভ মেলাতে তাদেরকে  ঘর থেকে বাইরে বেরোনো নিষেধ করা হয়েছে। ইতিমধ্যে বন্দরের একটি স্বেচ্ছাসেবক টিম তৈরী করা হয়েছে। সেইসব এলাকায় খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেওয়ার জন্য। বন্দরের প্রশাসনিক কাজকর্ম করছেন অনলাইনের মাধ্যমে জানালেন 
 বন্দরের ভারপ্রাপ্ত জেনারেল ম্যানেজার (প্রশাসন) প্রবীন কুমার দাস। হলদিয়া বন্দর হাসপাতাল এক জন স্বাস্থ্যকর্মীর করোণা পজিটিভ আশায় তৎক্ষণাৎ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তাকেই কেবলমাত্র হোম কোরেন্টাইন রাখার জন্য। তা সত্ত্বেও হলদিয়া বন্দরের কাজকর্ম স্বাভাবিক রাখতে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য সরবরাহ করার জন্য কেন্দ্র সরকারের কাছে ভারতীয় মজদুর সংঘ পূর্ব মেদিনীপুর জেলা কমিটির উদ্যোগে দাবি রাখা হয়েছিল। বন্দরের শ্রমিকদের নিরাপত্তার জন্য সেখানে দাঁড়িয়ে ভারত সরকারের জাহাজ মন্রক বন্দরের কর্মীদের জন্য সুরক্ষার জন্য ইতিমধ্যে 50 লক্ষ টাকা বীমা করে দিয়েছেন ।সেই সুবাদে  বন্দরের কর্মচারীরা মনোবল নিয়ে বন্দরে অত্যাবশ্যকীয় কাজকর্ম ঠিকঠাক চলে তার সব রকমের ব্যবস্থা নিয়েছেন। জানালেন ভারতীয় মজদুর সংঘ পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় কার্যকরী সভাপতি এবং হলদিয়া কলকাতা পোর্ট ভারতীয় মজদুর ইউনিয়নের সম্পাদক প্রদীপ বিজলী।

No comments