Breaking News

দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা

শিব শঙ্কর চ্যাটার্জি, নিউজ অনলাইন, বালুরঘাট:  দক্ষিন দিনাজপুর জেলায় লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়ে চলেছে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা। জেলায় নতুন করে সংক্রামিত হলেন মোট ৪৫ জন। তিনশো র ঘর তো আগেই পেড়িয়ে গেছে এবার করোনার ঝড়ো ব্যাটিং  এ জেলায় করোনার স্কোর রেট চারশোর ঘর ছুই ছুই হতে চলেছে। আজকের ৪৫ জন আক্রান্তকে নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩৬০। তবে জেলা ও রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের হিসেবে সংখ্যাটা ৩৭০ জন। কেননা  দক্ষিন দিনাজপুর জেলার বাসিন্দা অথচ জেলার বাইরে পরীক্ষা করিয়ে পজিটিভ হয়েছেন, এমন ১০ জনকে তালিকায় নেওয়া হয়েছে। এর মধ্যেও খানিকটা স্বস্তি এদিন ১ জনের ছুটি হয়েছে, এইনিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তদের মধ্যে ২৩৫ জনই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গিয়েছেন।তবে মৃত্যুর সংখ্যা  ওই ১ জন। 

শাসক দলের বিধায়ক থেকে যুব সভাপতির করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবরের পর। আজকের ৪৫ জন আক্রান্তের মধ্যে এবার বিরোধী দল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি ও ছাত্র পরিষদের জেলা সভাপতি ও রয়েছেন বলে জানা গেছে।

এতদিন ট্রুনাট মেশিনের মধ্য দিয়ে পজেটিভ হলেও, তাদের তালিকায় নাম উঠছিল না।কিন্তু  আজকের এই ৪৫ জন আক্রান্তের মধ্যে ৭ জন ট্রুনাট পজিটিভকে তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। বাকি ৩৮ জনের পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে মালদা মেডিকেল কলেজ থেকে। এই ৩৮ জনের মধ্যে জেলা সদর শহর বালুরঘাটেই সংক্রামিত হয়েছেন ৫ জন। বালুরঘাট গ্রামীন এলাকায় ১ জন সংক্রমিত হয়েছেন। বালুরঘাট শহরের বাজারপাড়া, নেপালিপাড়া, খাদিমপুর, মংগলপুর, নারায়নপুর একজন করে ও বালুরঘাট ব্লকের ভাটপাড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের ডাংগিতে একজন সংক্রমিত হয়েছেন।আরও জানা গেছে এদিন বালুরঘাট সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের ট্রু নাট মেশিন এর মধ্য দিয়ে পজেটিভ হওয়া পাচ জন ও গঙ্গারামপুর হাসপাতালের ট্রু নাট মেশিনের মধ্য দিয়ে পজিটিভ হওয়ার দুই  জনের নাম তালিকায় ধরা হয়েছে।তবে এই আক্রান্তদের কারোর কোন ট্রাভেল হিস্ট্রি নেই বলে জানা গেছে।

এছাড়াও আজকের ৪৫ জন আক্রান্তের মধ্যে গঙ্গাগারামপুর শহরে ২ জন, কুমারগঞ্জে ১৫ জন, কুশমন্ডিতে ৫ জন, হরিরামপুরে ৫ জন, তপনে ৫ জন ও বুনিয়াদপুরে ২ জন সংক্রমিত হয়েছেন। আর ও জানা গেছে কুমারগঞ্জের চকরামরাই গোপালগঞ্জ দুজন, নারায়নপুরে আটজন, বলতাতে একজন, চাকমামুদিতে একজন,রায়নন্দাতে এক জন, তাজপুরে একজন ও মহিপুর সাব সেন্টারের একজন সংক্রমিত হয়েছেন। গঙ্গারামপুরের পুর্ব হালদার পাড়া ও ভোদং পাড়ায় একজন করে, তপনের বজ্রাপুকুর, রামপুর ও ভাইওরে একজন করে, হরিরামপুরের সোনাহানে একজন, ইতলঘাটিতে একজন ও হরিরামপুরে তিনজন সংক্রমিত হয়েছেন। কুশমন্ডি ব্লকের কুশমন্ডিতে একজন, মাঝপাড়ায় ২ জন, মালিহারে ১ জন, পচাদিঘিতে এক জন সংক্রমিত হয়েছেন। এছাড়াও দুজন বুনিয়াদপুরের রয়েছে।আক্রান্তদের গত ৯ জুলাই সোয়াব সংগ্রহ করে, পরীক্ষার জন্য মালদা মেডিক্যাল কলেজে পাঠানো হয়েছিল। তার মধ্যে থেকেই এদিন এই ৩৮ জনের পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। জানা গেছে জেলা স্বাস্থ্য দফতরের উদ্যোগে নতুন আক্রান্তদের সেফ হাউজে বা কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসার জন্যে আনবার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

এদিকে  গত ৯ জুলাই বিকেল পাচটা থেকে করোনা মোকাবিলায় জেলার  তিন অটি পুরসভা ও গ্রাম পঞ্চায়েত মিলে ৪৭ টি কনটেন্টমেন্ট জোনে লকডাউন চলছে।কিন্তু অভিযোগ উঠেছে প্রশাসনের ঢিলে ঢালা মনোভাবের জন্য তেমন জোড় তোড় লকডাউন কোন কনটেনমেন্ট জোনে পালন করা হচ্ছে না। ফলে যে উদ্দেশ্য নিয়ে লকডাউন সেই করোনা রোখা কতটা সম্ভবপর হবে।

No comments