Breaking News

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (হু) এর এক প্রতিনিধি এলেন পাঁশকুড়া করোনা হাসপাতাল পরিদর্শনে

প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়, নিউজ অনলাইন: 
করোনা যুদ্ধ্যে ইতিমধ্যেই সাফল্যের মুখ দেখেছে পূর্বমেদিনীপুর। আর তা সম্ভব হয়েছে কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকারের গাইডলাইন মেনে চিকিৎসা, ডাক্তারদের রুটিন চেকআপ, ভালো খাওয়ার দেওয়া প্রভৃতির জন্য। আর তা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কাছে আদর্শ। তাই রাজ‍্যের প্রথম পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় এই প্রথম বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এর এক সদস্য পাঁশকুড়া থানার মেচগ্রামের করোনা হাসপাতাল পরিদর্শনে এলেন সোমবার।
এই হাসপাতালে দুই মেদিনীপুর এবং ঝাড়গ্রাম জেলার সমস্ত করোনা পজিটিভ রোগীর চিকিৎসা হচ্ছে। এরই মধ্যে করোনা চিকিৎসায় ওই হাসপাতালের সাফল্য স্বাস্থ্যভবনের কর্তাদের নজরে এসেছে। তাই এই হাসপাতাল পরিদর্শনে এলেন WHO এর এক সদস্য।

জানা গিয়েছে,গত ৩ এপ্রিল মেচগ্রামে বড়মা মাল্টি স্পেশালিটি হাসপাতাল টি করোনা হাসপাতাল হিসেবে চালু হয়। এরই মধ্যে করোনা চিকিৎসায় ওই হাসপাতালের সাফল্য স্বাস্থ্যভবনের কর্তাদের নজরে এসেছে। এখনও পর্যন্ত ১৪ জন করোনা আক্রান্ত ভর্তি হয়েছেন। সুস্থ হয়ে বাড়ি গিয়েছেন ১০ জন ।চিকিৎসাধীন চারজনও সুস্থ হওয়ার পথে। দু’-একদিনের মধ্যেই তাঁদের ছেড়ে দেওয়া হতে পারে।
অন্যদিকে গতকাল রাতে জ্বর, কাশি শ্বাসকষ্ট প্রভৃতি উপসর্গ নিয়ে তমলুক জেলা হাসপাতালে চন্ডিপুর থেকে এক রোগী ভর্তী হয়। আজকে সকালে তার মৃত্যু হয়। কিন্তু তার কোবিড ১৯ এর নমুনা নেওয়া সম্ভব হয়নি। তাই সতর্কতা হিসেবে পুলিশি প্রহরায় ওই ব্যক্তির দেহ বাড়ির লোকেদের হাতে দেওয়া হবে বলে জানান জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক। সেই সংগে মৃত ওই ব্যাক্তির বাড়ির লোকেদেরও স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে।

No comments