Breaking News

কন্যা খুনে অভিযুক্ত বাবা, কবর থেকে দেহ গেল ময়নাতদন্তে

প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়, নিউজ অনলাইন, পূর্ব মেদিনীপুর: এবার কন্যা খুনে অভিযুক্ত বাবা। ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার মহিষাদল থানার গাজীপুরে। গত শুক্রবার নিজের কন্যা সন্তানকে জলে ফেলে খুন করার অভিযোগ উঠেছে গাজীপুর গ্রামের বাসিন্দা শেখ সিরাজুলের বিরুদ্ধে। এরপর স্থানীয় মানুষজন জল থেকে দেহ উদ্ধার করে কবরস্থ করে দেন। এই খবর ওই কন্যাসন্তানের মা পাওয়া মাত্রই স্থানীয় মহিষাদল থানায় তার বাবার বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ দায়ের করেন। এরপরই হলদিয়া মহকুমা আদালতের নির্দেশে রবিবার সকালে কবর থেকে দেহ তুলে ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যায়। 

স্থানীয় সূত্রে খবর, গত কয়েক মাস ধরে দাম্পত্য কলহ লেগে চলেছিল গাজীপুরের বাসিন্দা শেখ সিরাজুল ও রোজিনা বিবির সঙ্গে। তাদের দুইজন নাবালিকা কন্যা সন্তান রয়েছে। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে দাম্পত্য কলহ এমন পর্যায়ে পৌঁছায় রোজিনা বিবি শ্বশুর বাড়ি ছেড়ে কতদিন বাপের বাড়ি নন্দীগ্রামে চলে যান। সঙ্গে নিজের বড় মেয়েকে নিয়ে যান। ছোট মেয়ে বাবার কাছে গাজীপুরে। এমন সময় গত শুক্রবার ছোট মেয়েকে জলে ফেলে খুন করার অভিযোগ উঠল বাবার বিরুদ্ধে। তবে পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের দাবি জলে পড়ে মৃত্যু হয়েছে ওই কন্যা সন্তানের। এদিকে কন্যাসন্তানের মা রোজিনা বিবি মেয়ের মৃত্যুর খবর জানতে পেরে তার স্বামীর বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ দায়ের করেন স্থানীয় মহিষাদল থানায়। এর মধ্যেই জল থেকে মৃতদেহ উদ্ধার করে ধর্মীয় আচার বিধি মেনে কবরস্থ করে দেন স্থানীয়রা। এরপরে হলদিয়া মহাকুমা আদালতের নির্দেশে রবিবার সকালে অভিযোগের ভিত্তিতে নাবালিকার মৃতদেহ কবর থেকে তোলা হয়। রবিবার সকালে কবর থেকে তোলার সময় উপস্থিত ছিলেন হলদিয়া মহকুমা পুলিশ সুপার তন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়, মহিষাদল থানার ওসি পার্থ বিশ্বাস, মহিষাদল ব্লক সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক জয়ন্ত দে, স্থানীয় মহিষাদল পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি তিলক কুমার চক্রবর্তী সহ অন্যান্যরা।  রবিবার সকালে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায় পুলিশ। অভিযুক্ত শেখ সিরাজুলকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গোটা ঘটনায় ইতিমধ্যে তদন্ত শুরু করেছে মহিষাদল থানার পুলিশ। 

No comments